স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড চালু পশ্চিমবঙ্গে, সীমা ১০ লাখ রুপি – News Vibe24

স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড চালু পশ্চিমবঙ্গে, সীমা ১০ লাখ রুপি - DesheBideshe

কলকাতা, ৩০ জুন – দারিদ্র্যের কারণে যাঁদের লেখাপড়া বন্ধ হওয়ার উপক্রম, যাঁরা নির্বিঘ্নে উচ্চশিক্ষা চালিয়ে যেতে চান, বিদেশে লেখাপড়ার স্বপ্ন যাঁদের—এমন সব শিক্ষার্থীর জন্য সুযোগের দরজা খুলে দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যে তিনি চালু করেছেন স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্প। এর আওতায় ১০ লাখ রুপি পর্যন্ত ঋণ নিতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

এই ঋণ তাঁদের পরিশোধ করতে হবে লেখাপড়া শেষে চাকরি হওয়ার পর। এক বছর চাকরি করার পর থেকে ধাপে ধাপে ওই অর্থ পরিশোধ করতে হবে।

আজ বুধবার রাজ্য সচিবালয় নবান্নে এক সাংবাদিক সম্মেলনে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড নিয়ে যাতে কোনো ধরনের জালিয়াতি না হয়, সেদিকে সজাগ থাকতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন তিনি।

মমতা বলেন, এই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পে ১০ লাখ রুপি পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হবে পড়ুয়াদের। আর এই ঋণের মাধ্যমে ছাত্রছাত্রীরা বিদেশে পড়াশোনা বা গবেষণা করতে পারবে। একই সঙ্গে কিনতে পারবে শিক্ষার প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম ও উপকরণ।

গত বৃহস্পতিবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, দশম শ্রেণি থেকে শুরু করে স্নাতক, স্নাতকোত্তর, পেশাভিত্তিক পাঠ্যক্রম, ডিপ্লোমা, এমফিল, ডক্টরেট স্তরে গবেষণার খরচ চালাতে এই ঋণ দেওয়া হবে। এসব কারণে বয়সসীমা ৪০ বছর পর্যন্ত করা হয়েছে।

এই কর্মসূচিতে কোর্স ফি, টিউশন ফি, ল্যাপটপ ও কম্পিউটারের জন্য ঋণ দেওয়া হবে। চাকরি পাওয়ার পর এক বছর অতিক্রান্ত হলে ঋণ শোধ করার উদ্যোগ নিতে হবে। ১৫ বছরের মধ্যে শোধ করতে হবে ওই ঋণ।

সূত্র: প্রথম আলো
এম ইউ/৩০ জুন ২০২১

(function(d, s, id){
var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0];
if (d.getElementById(id)) return;
js = d.createElement(s); js.id = id;
js.src = “https://connect.facebook.net/bn_BD/sdk.js#xfbml=1&version=v3.2”;
fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs);
}(document, ‘script’, ‘facebook-jssdk’));

Newsvibe24 Source