সিলেট-৩ উপনির্বাচনের প্রার্থীরা বিধিনিষেধের মধ্যে কৌশলী! – News Vibe24

সিলেট-৩ উপনির্বাচনের প্রার্থীরা বিধিনিষেধের মধ্যে কৌশলী! - DesheBideshe


সিলেট, ০৯ আগস্ট – নানা ঝামেলা পেরিয়ে অবশেষে সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন আগামী ৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে আয়োজনের অনুমতি পেয়েছে ইসি। তবে চলমান লকডাউনের কারণে রয়েছে আনুষ্ঠানিক প্রচারণায় বিধিনিষেধ। কিন্তু তারপরও থেমে নেই প্রার্থীরা। নানা কৌশলে বিধিনিষেধের বেড়াজাল ডিঙিয়ে তারা ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে।

সিলেট-৩ আসনের সাংসদ আওয়ামী লীগের মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী গত ১১ মার্চ করোনাক্রান্ত হয়ে মারা যান। ফলে আসনটি শূন্য হয়। নব্বই দিনের মধ্যে এ আসনে উপনির্বাচনের বাধ্যবাধকতা থাকলেও করোনার কারণে তা সম্ভব হয়নি। উপনির্বাচন আয়োজনে সময় বাড়ানো হয় আরো নব্বই দিন। ভোটগ্রহণের দিন ২৮ জুলাই ধার্য্য করে নির্বাচন কমিশন। কিন্তু জুলাইয়ে দেশে করোনার ভয়াবহ সংক্রমণের মধ্যে এ উপনির্বাচন আয়োজনের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। গত ২৬ জুলাই সুপ্রিমকোর্টের ছয় আইনজীবী ও নির্বাচনী এলাকার সাত ভোটার হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন। আদালত উপনির্বাচন ৫ আগস্ট অবধি স্থগিত রাখতে নির্দেশ দেন। এরপর ৫ আগস্ট শুনানি শেষে আদালত ৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ইসি উপনির্বাচন করতে পারবে বলে আদেশ দেন।

এই উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগের হাবিবুর রহমান হাবিব, জাতীয় পার্টির আতিকুর রহমান আতিক, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য শফি আহমেদ চৌধুরী এবং বাংলাদেশ কংগ্রেসের জুনায়েদ মুহাম্মদ মিয়া। নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় ইতোমধ্যেই শফিকে বিএনপি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এসব প্রার্থীদের মধ্যে জুনায়েদ মুহাম্মদ মিয়া একেবারেই নিষ্ক্রিয়। নির্বাচন স্থগিতের পর মাঠে নেই শফি আহমেদ চৌধুরীও। তবে বিধিনিষেধের মধ্যেও অন্য দুই প্রার্থী নানা কৌশলী প্রচারণায় ব্যস্ত রয়েছেন। হাবিব ও আতিক সমানতালে এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায় ছুটছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, করোনার বিধিনিষেধের মধ্যে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা বন্ধ থাকলেও প্রার্থীরা নানা অজুহাতে নির্বাচনী এলাকা চষে বেড়াচ্ছেন। এলাকার কারো মৃত্যু হলে কর্মীবাহিনী নিয়ে ছুটে যাচ্ছেন। অসুস্থ ব্যক্তিদের ‘খবর নেয়ার’ অজুহাতে তাদের বাড়িতে হাজির হচ্ছেন। গত শনিবার মারা যান লালাবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পীর ইকবালের মা। তার জানাজায় বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীসহ উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিব ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী আতিক।

এদিকে, শোকের মাস আগস্টকে কৌশলী প্রচারণায় কাজে লাগাচ্ছেন হাবিব। নির্বাচনী এলাকার ইউনিয় পর্যায়ে জাতীয় শোক দিবসের ধারাবাহিক কর্মসূচিতে তিনি প্রধান অতিথি হিসেবে অংশ নিচ্ছেন। গত শনিবারও তাকে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার উত্তর কুশিয়ারা ইউপি আওয়ামী লীগের আয়োজনে শোক দিবসের আলোচনায় অংশ নিতে দেখা গেছে। করোনার টিকাদানের বিষয়টিকেও প্রচারণায় কাজে লাগানো হচ্ছে। জাতীয় পার্টির আতিককে বিভিন্ন টিকাকেন্দ্র পরিদর্শনে যেতে দেখা গেছে। এসবের বাইরে প্রার্থীরা প্রতিদিন নামাজের সময় বিভিন্ন মসজিদে গিয়ে হাজির হচ্ছেন, মুসল্লিদের সাথে কুশল বিনিময় করছেন।

প্রচারণা প্রসঙ্গে হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, ‘শোকের মাস আগস্টে সংগঠনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হচ্ছে। এসব কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছি। তবে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা থেকে বিরত রয়েছি।’

আতিকুর রহমান আতিক বলেন, ‘টিকা কেন্দ্র পরিদর্শনসহ হাট-বাজারে গেলে মানুষের সাথে দেখা হচ্ছে। কুশল বিনিময়ের পাশাপাশি তাদেরকে নির্বাচনে লাঙ্গল প্রতীকে ভোট দেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’

সূত্র : সিলেটভিউ
এম এউ, ০৯ আগস্ট

(function(d, s, id){
var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0];
if (d.getElementById(id)) return;
js = d.createElement(s); js.id = id;
js.src = “https://connect.facebook.net/bn_BD/sdk.js#xfbml=1&version=v3.2”;
fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs);
}(document, ‘script’, ‘facebook-jssdk’));

Newsvibe24 Source