সাপের কামড়ে মৃত কিশোরী,জীবন ফিরে পাওয়ার আশায় দেহ ভেলায় ভাসালেন বাবা – News Vibe24

সাপের কামড়ে মৃত কিশোরী,জীবন ফিরে পাওয়ার আশায় দেহ ভেলায় ভাসালেন বাবা - DesheBideshe

কলকাতা, ২৬ জুন- সাপের কামড়ে প্রাণ গেছে মেয়ের। কলার ভেলায় নদীতে ভাসালে জীবন ফিরে পাবে মেয়ে। এই বিশ্বাসে কলার ভেলায় মেয়েকে ভাসিয়ে দিলেন তারাই বাবা দীপ মৃধা। পরে অবশ্য পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবন সংলগ্ন গোসাবায়। খবর এই সময়ের।

প্রযুক্তির উৎকর্ষ হওয়া এমন যুগেও চলছে ওঝা-গুণিনের কেরামতি! সাপের কামড়ের পর হাসপাতালে নয়, নিয়ে যাওয়া হয় ওঝার কাছে। তারপর দীর্ঘক্ষণ ধরে চলল ঝাড়ফুঁক। যার পরিণামে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে ওই কিশোরী। আর এরপরই তার দেহ কলার ভেলায় ভাসানো হয়।

পুলিশ জানায়, মৃত মেয়েটির নাম পূজা। গোসাবা ব্লকের ছোট মোল্লাখালি গ্রাম পঞ্চায়েতের ৫ নম্বর কালিদাসপুর গ্রামের বাসিন্দা ১০ বছরের পূজা কুসংস্কারের বলি হয়েছে। তার দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন গোসাবা থানার পুলিশ কর্মকর্তা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার রাতে বাবার সঙ্গে ঘুমিয়েছিল পূজা। রাত পৌনে এগারোটার দিকে তাকে সাপে কামড়ায়। পূজার বাবা দীপ তখন মেয়েকে নিয়ে যান স্থানীয় এক ওঝার কাছে। সেখানে প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে চলে ঝাড়ফুঁক। পরে অবস্থা বেগতিক দেখে মেয়েকে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান দীপ। কিন্তু চিকিৎসা শুরুর আগেই মারা যায় পূজা।

পরে মৃত মেয়ের দেহ কলার ভেলায় চাপিয়ে স্থানীয় সারসা নদীতে ভাসিয়ে দেন দীপ ও পরিবারের সদস্যরা। শনিবার এই খবর সামনে আসতেই নিন্দার ঝড় ওঠে। পূজার মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত ওঝার খোঁজ শুরু করেছে পুলিশ। তার পরিবারের লোকেদেরও জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে।

তথ্যসূত্র: আরটিভি
এস সি/২৬ জুন

 

(function(d, s, id){
var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0];
if (d.getElementById(id)) return;
js = d.createElement(s); js.id = id;
js.src = “https://connect.facebook.net/bn_BD/sdk.js#xfbml=1&version=v3.2”;
fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs);
}(document, ‘script’, ‘facebook-jssdk’));

Newsvibe24 Source