শিল্পীরা সব থেকে অবহেলিত: সুমন আনোয়ার – News Vibe24

শিল্পীরা সব থেকে অবহেলিত: সুমন আনোয়ার - DesheBideshe

ঢাকা, ০৭ আগস্ট – সম্প্রতি মাদক মামলায় আটক হয়েছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পরীমণি। এই ইস্যুতে শুক্রবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয় নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরীকেও, পরে অবশ্য চয়নিকাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শিল্পীদের আটক নিয়ে পক্ষে বিপক্ষে নানা আলোচনা চলছে। জনপ্রিয় নির্মাতা ও অভিনেতা সুমন আনোয়ারও নিজের মতামত ব্যক্ত করেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। সুমন আনোয়ারের স্ট্যাটাসটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

‘‘কি লিখবো বুঝতে পারছিলাম না!

আমার দৃঢ় বিশ্বাস উৎপল দত্ত কখনোই ওই রকম সংলাপ লিখতে পারতো না পরিচালক না হলে-‘আমি ঘৃণার মতো একা, আমি বিধাতার মতো একা’ সত্যিই একজন পরিচালক ভীষণ একা, নিজের কনসিভ করা গল্পটা ডেলিভারি করার জন্য ইউনিটের প্রত্যেকটা কলাকুশলীর দ্বারস্থ হতে হয় তাকে, কারণ সকলেই তার প্রফেশনাল জব রেস্পন্সিবিলিটি কাজটুকুই শুধু করে, গল্পের পুরো দায়িত্বটা পরিচালকের একার, বাবা মায়ের মত ইউনিটের প্রত্যেকের দায়িত্ব নিয়ে গল্পটা তৈরি করতে হয়, অবশ্য এই রিয়্যালিটি শুধু বাংলাদেশই, ইউরোপ-আমেরিকায় এই ইমোশনাল বন্ডেজ নেই, এমনকি পাশের দেশেও চূড়ান্ত প্রফেশনাল ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির ইউনিটে জাতপাত ভাষা নানা ধর্ম আর প্রাদেশিক সংকটে এই ইমোশনাল সংমিশ্রণটা ঘটে না, সুতরাং পরিচালক অবশ্যই বাবা-অবশ্যই মা, আপনি সেই শিল্পীকে ‘গডমাদার’, ‘মম’এইসব ভাষায় অসম্মান করতে পারেন না, শিল্পীকে তার প্রাপ্য সম্মানটুকু দেন, সে পরিচালকই হোক আর অভিনেত্রীই হোক, জাতি হিসেবে আমাদেরকে আরও বড় হতে হলে সম্মান দেয়ার চর্চাটা শুরু করতে হবে।।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে একজন নারীর সম্মান কতটুকু? পারিবারিক অবকাঠামোতে ছোটবেলা থেকেই বৈষম্যের শিকার নারী মানুষ হয়ে মাথা তুলে উঠে দাঁড়াতে পারে না, সারা জীবনচক্রে তার কোন আশ্রয় নেই তার কোন ঠিকানা নেই, আশ্রিতা হয়েই কেটে যায় তার জীবন, কখনো বাবার বাড়ি, কখনো শ্বশুরবাড়ি, শেষমেশ সন্তানের বাড়ি নয়তো বৃদ্ধাশ্রম, বাংলাদেশের নারীর কোন নিজের ঘর নেই রান্নাঘর ছাড়া, রান্নাঘরেই এ দেশের নারীর একমাত্র আশ্রয়, আশ্রিতা হয়ে বেড়ে ওঠার কষ্ট আপনি কখনোই অনুভব করবেন না যদি না কখনো আপনাকে আশ্রয়ে জন্য অনিশ্চয়তায় থাকতে হয়, ছোটবেলা থেকে আশ্রিতা হয়ে ভেসে বেড়ানো অভিনেত্রী মানুষ হিসেবে নিজের পায়ে দাঁড়াতে চেয়েছে, আজকের সেলিব্রেটি অভিনেত্রী হয়ে ওঠার পেছনে তার কিন্তু লম্বা সংগ্রাম আছে, আমি সাম্প্রতিক ঘটনার বিচার কাজে যাব না, সেটা অন্য প্রসঙ্গ (সাকসেস ম্যানেজমেন্ট) আমি শুধু একজন অভিনেত্রীর নিজের পরিচয়ে মফস্বল থেকে ঢাকায় এসে এফডিসিতে শুটিং দেখতে যেয়ে সেই ইন্ডাস্ট্রির ডমিনেটিং হিরোইন হয়ে ওঠার সংগ্রামের কথা বলছি, সেই শিল্পীকে অবশ্যই আপনি সম্মান করবেন, তার ব্যক্তি জীবনের উন্মাদনার জন্য শিল্পীকে অসম্মান করার অধিকার আপনাকে কেউ দেয়নি, আর যেকোনো শিল্পচর্চায় সমাজের চোখে একধরনের উন্মাদনা, রাষ্ট্রীয়ভাবেও শিল্পীরা সব থেকে অবহেলিত, কতটুকু সম্মান করে রাষ্ট্র এদেশের একজন শিল্পীকে? শিল্পীকে সম্মান না করলে একটা জাতি কখনো বড় হয়ে উঠতে পারে না, আপনি উন্নত বিশ্বের স্বপ্ন দেখছেন আগামী দিনের বাংলাদেশকে নিয়ে, সেই সাথে সাথে উন্নত করুন নিজেদের মানসিকতাও, সোশ্যাল মিডিয়ার সংখ্যাতত্ত্বের ইঁদুর দৌড়ে আপনি সারাক্ষণ নেগেটিভিটিকে প্রোমোট করছেন, আপনার মানসিকতা বিকৃত হয়ে যাচ্ছে, সেই মানসিকতার জায়গা থেকে যে কোন ঘটনাকে শুরু থেকেই আপনি নেগেটিভ ভাবে দেখতে শুরু করেন, নেগেটিভ নিউজ ট্রল ভাইরাল এই সমস্ত কিছু দেখতে দেখতে আপনার ভেতরকার পজিটিভিটি হারিয়ে গেছে, বি পজিটিভ ম্যান, অন্যের সাকসেস অন্যের খ্যাতি মেনে নিন, অ্যাপ্রিশিয়েট করুন, সম্মান করুন আপনার পাশের প্রত্যেকটা মানুষকে, বিশেষ করে যারা শিল্পী তাদেরকে অবশ্যই সম্মান করবেন, আপনার বিনোদনের পুরোটা জায়গা জুড়েই শিল্পীরা, তাদেরকে সম্মান না করলে আপনি নিজেই আপনার নিজেকে অসম্মান করবেন।’’

সূত্র: দেশ রূপান্তর
এম ইউ/০৭ আগস্ট ২০২১

(function(d, s, id){
var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0];
if (d.getElementById(id)) return;
js = d.createElement(s); js.id = id;
js.src = “https://connect.facebook.net/bn_BD/sdk.js#xfbml=1&version=v3.2”;
fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs);
}(document, ‘script’, ‘facebook-jssdk’));

Newsvibe24 Source