লাঠি হাতে ডিসি-এসপির চামড়া তোলার স্লোগান কাদের মির্জার – News Vibe24

লাঠি হাতে ডিসি-এসপির চামড়া তোলার স্লোগান কাদের মির্জার - DesheBideshe

নোয়াখালী, ৩০ মে- নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার বিশিষ্ট মেয়র আবদুল কাদের মির্জা তাঁর অনুসারীদের নিয়ে মিছিল করেছেন। মিছিল থেকে ডিসি, এএসপি, ইউএনও এবং ওসির ত্বক অপসারণের জন্য তিনি স্লোগান দেন।

রবিবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে মেয়র কাদের মির্জার নেতৃত্বে শোভাযাত্রাটি বসুরহাট বাজারের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধু চত্তরে সংক্ষিপ্ত সভায় মিলিত হয়।

শোভাযাত্রাটি কাদের মির্জা একটি লাঠি ধরে বিভিন্ন স্লোগান দিতে বসুরহাট বাজারের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করতে দেখা গেছে।

তিনি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) শামীম কবির, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) জিয়াউল হক মীর, সহকারী কমিশনার ভূমি (এসল্যান্ড) সুব্রভত চাকমা এবং অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনিকে কোম্পানীগঞ্জ থেকে প্রত্যাহারের দাবি জানান।

তার বড় ভাই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের দিকে ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, ২৪ ঘন্টার মধ্যে তাদের প্রত্যাহার করা উচিত। অন্যথায় পৌরসভা প্রাঙ্গণে ধারাবাহিক অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হবে।

কাদের মির্জা বলেছিলেন, প্রশাসনের ছত্রছায়ায় এখানে সহিংসতা চলছে। প্রশাসন ডিসি-এসপির নির্দেশে অর্থের জন্য তাদের সহায়তা করছে। তারা এখানে এমপি একরামের রাজত্ব প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

এ সময় তিনি তাঁর অনুগামীদের সাথে স্লোগান দিয়েছিলেন – ‘আমরা ওসি রেইনারের ত্বক নেব (ওসি মীর জাহেদুল হক রনি)’, ‘আমরা শামীমের ত্বক নেব (এএসপি শামীম কবির)’, ‘আমরা ত্বক নেব ইউএনও’র ‘, আমরা ডিসির ত্বক নেব’ আমরা নেব ‘,’ এসপির ত্বক নেব ‘।

কাদের মির্জা তার কয়েকজন নেতা-কর্মীর নাম উল্লেখ করেছেন এবং তাঁর অনুসারীদের নিজ নিজ এলাকায় মিছিল করার নির্দেশনা দিয়েছিলেন।

তিনি আরও বলেছিলেন, ‘আমি এখন ওবায়দুল কাদেরকে নিয়ে কথা বলিনি। তিনি আমার সাথে যে সমস্ত প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে পূরণ করেছেন। যদি তা না হয় তবে এটি আপনার বিরুদ্ধে কাজ করবে, এটি আপনার স্ত্রীর বিরুদ্ধে কাজ করবে। আমি হাল ছাড়ব না। ‘

কাদের মির্জা বলেছিলেন, ‘ওবায়দুল কাদেরের সাথে আমার কিছুটা দূরত্ব ছিল তবে তা কেটে ফেলা হয়েছে। প্রশাসন আমাকে এবং আমার ভাই ওবায়দুল কাদেরকে অপসারণ করে কোম্পানীগঞ্জে একরামের রাজত্ব প্রতিষ্ঠা করতে চায়। প্রশাসন একতরফা সহিংসতা চালাচ্ছে। আমরা রক্ত ​​দিয়েও প্রতিহত করব। ‘

এ সময় তিনি বলেছিলেন, “গতকাল (শনিবার) বসুরহাট পৌরসভার নবম ওয়ার্ডে প্রশাসনের সামনে আমার নেতাকর্মীদের বিদেশি সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা গুলি করে হত্যা করেছিল।” আমার ১৫ জন নেতা-কর্মীকে গুলি করা হয়েছিল। আমার দুই নেতা-কর্মী Dhakaাকা মেডিকেল কলেজে মৃত্যুর জন্য লড়াই করছে। সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করতে হবে।

কাদের মির্জা বলেছিলেন, ‘আমার (আমি) ৯ ই আমেরিকা যাওয়ার কথা ছিল। আমি যদি মরে যাই তবে আমি এই দেশে চিকিত্সার পরে মারা যাব। প্রয়োজনে আমি আমেরিকা যাব না, তবে এর শেষ দেখতে পাচ্ছি।

এর আগে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে at টায় বাসুরহাট পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডে কাদের মির্জার অনুসারীরা মিছিল নিয়ে পৌরসভার দিকে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে, বিরোধী দল আওয়ামী লীগের লোকজন গুলি চালিয়েছিল। কাদের মির্জার ছয় জন অনুসরণকারী গুলিবিদ্ধ হন।

সূত্র: দেশ রূপান্তর
এমইউ / 30 মে 2021

(function(d, s, id){
var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0];
if (d.getElementById(id)) return;
js = d.createElement(s); js.id = id;
js.src = “https://connect.facebook.net/bn_BD/sdk.js#xfbml=1&version=v3.2”;
fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs);
}(document, ‘script’, ‘facebook-jssdk’));