রাবির সাবেক উপাচার্যের সহযোগীসহ ৬ জনের ব্যাংক হিসাব তলব – News Vibe24

রাবির সাবেক উপাচার্যের সহযোগীসহ ৬ জনের ব্যাংক হিসাব তলব - DesheBideshe

রাজশাহী, ১ জুন- জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য অধ্যাপক এম আবদুস সোবহান এবং তার স্ত্রী ও শিশুসহ আরও ছয়জনের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট তলব করেছে। রবিবার এনবিআরের সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স সেল থেকে বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংককে এ বিষয়ে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছিল। চিঠিতে তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে।

চিঠিতে ছয়জনকে তাদের তথ্য ব্যক্তিগত বা যৌথ নামে বা তাদের মালিকানাধীন ব্যবসায়িক সত্তার নামে, ব্যাংক আমানত, যে কোনও স্থায়ী, বর্তমান এবং loanণ অ্যাকাউন্ট, বৈদেশিক মুদ্রার অ্যাকাউন্ট, ক্রেডিট কার্ড, সঞ্চয়পত্র বা তাদের নামে প্রেরণ করতে বলা হয়েছিল অন্য কোন ধরণের সঞ্চয়

উপাচার্য এম আবদুস সোবহানের অপর তিন সহযোগী, যাকে ব্যাংক অ্যাকাউন্টে তলব করা হয়েছিল তারা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রক্টর লুৎফর রহমান ও তাঁর স্ত্রী মনিরা ইয়াসমিন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের প্রাক্তন সভাপতি এবং যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইব্রাহিম হোসেন মুন ও তাঁর স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিক। ও স্ত্রী মাহফুজা আক্তার।

এর আগে ২৪ শে মে এনবিআরের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার প্রাক্তন উপাচার্য এম আব্দুস সোবহান ও তাঁর স্ত্রী মনোয়ারা সোবহান, ছেলে মুশফিকুর সোবহান, মেয়ে সঞ্জনা সোবহান এবং সানজানার স্বামী এটিএম শাহেদ পারভেজের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট তলব করেছেন।

আগের চিঠিতে যদি ব্যাংকের আমানত, কোনও স্থির, কারেন্ট এবং loanণ অ্যাকাউন্ট, বৈদেশিক মুদ্রার অ্যাকাউন্ট, ক্রেডিট কার্ড, সঞ্চয় শংসাপত্র বা প্রাক্তন ভাইস সহ তার পরিবারের পাঁচ সদস্যের যৌথ সদস্যের নামে অন্য কোনও প্রকারের সঞ্চয় থাকে -আরবিআইয়ের চ্যান্সেলর, বা তাদের মালিকানাধীন ব্যবসায়, বলা হয়েছে।

এনবিআর চিঠিটি ব্যাংকগুলিকে 1 জুলাই, 2014 থেকে আপডেট তথ্য সরবরাহ করতে বলেছে। উল্লিখিত সময়ের আগে যদি কোনও অ্যাকাউন্ট থাকে তবে তা সরবরাহ করতেও বলা হয়েছে।

অধ্যাপক এম আবদুস সোবহান তার মেয়াদ শেষ হওয়ার শেষ দিনে ৮ মে কমপক্ষে ৯ জন শিক্ষকসহ ১৩৮ জনকে উপাচার্য হিসাবে নিয়োগ দিয়ে ক্যাম্পাসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছিলেন। একই দিন শিক্ষামন্ত্রণালয় এই নিয়োগকে অবৈধ ঘোষণা করে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। কমিটি নিয়োগে আইন লঙ্ঘনের প্রমাণ পেয়েছিল এবং অধ্যাপক সোবহান এবং তার পরিবারের সদস্যদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্য অনুসন্ধানের সুপারিশ করেছিল।

এর আগে, উপাচার্য থাকাকালীন তাঁর বিরুদ্ধে নিয়ম লঙ্ঘন এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁর মেয়ে ও জামাইকে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার অভিযোগ ছিল।

সূত্র: আমাদের সময়
এমইউ / 1 জুন 2021

(function(d, s, id){
var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0];
if (d.getElementById(id)) return;
js = d.createElement(s); js.id = id;
js.src = “https://connect.facebook.net/bn_BD/sdk.js#xfbml=1&version=v3.2”;
fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs);
}(document, ‘script’, ‘facebook-jssdk’));