ফেরি ঘাট সাময়িকভাবে স্থানান্তর হতে পারে – News Vibe24

ফেরি ঘাট সাময়িকভাবে স্থানান্তর হতে পারে - DesheBideshe


মাদারীপুর, ১৯ আগস্ট – পদ্মা নদীর বর্তমান গতি পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে বিআইডব্লিউটিএ,বিআইডব্লিউটিসিসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে যৌথ সার্ভে সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটের পদ্মা সেতু এলাকাসহ শিমুলিয়া,বাংলাবাজার ও মাঝিকান্দি পয়েন্টগুলো পরিদর্শন করেন তারা।

সার্ভে শেষে প্রতিনিধি দলটি জানায়, লঞ্চ চলাচল পদ্মা সেতুর নীচ দিয়েই করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে স্রোত আরো অবনতি হলে লঞ্চও বন্ধ করা হবে। আর স্রোত কমলে ফেরি চালানো হবে। তবে সাময়িকভাবে শুধু হালকা যানবাহন নিয়ে ফেরি মাঝিকান্দি দিয়ে চালানোর বিষয়টি ভাবা হচ্ছে। সেই সাথে ফেরি ঘাট সাময়িকভাবে স্থানান্তর করা হতে পারে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএর পরিচালক মোঃ রফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত পরিচালক আঃ মতিন সরকার ,বিআইডব্লিউটিসির ডিজিএম আব্দুস সোবাহান প্রমুখ।

এদিকে বিআইডব্লিউটিসিসহ একাধিক সুত্রে জানা যায়, পদ্মায় পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে স্রোতের গতিও বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে মূল পদ্মা নদীর পিলার পয়েন্টগুলোতে সৃষ্টি হয়েছে ঘূর্ণিস্রোত। পদ্মায় বর্তমানে ৪.৯৮ নটিক্যাল মাইল গতিতে স্রোত বহমান রয়েছে। যা পদ্মা সেতুর পিলার পয়েন্টে এসে বাধার সৃষ্টি হয়ে ঘূর্নি স্রোতের সৃষ্টি হয়ে স্রোতের গতিবেগ কয়েকগুনে বেড়ে গেছে। গত ৬ দিন ধরে পদ্মায় অস্বাভাবিকহারে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। বৃহস্পতিবার ২৪ ঘন্টায় পদ্মায় পানি বেড়েছে ৫ সে.মি.। সোমবার পদ্মায় ১০ সে.মি, মঙ্গলবার ১৩ সে.মি ও বুধবার ১০ সে.মি. পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। দ্রুত পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে স্রোতের তীব্রতাও বেড়েছে।

প্রায় এক সপ্তাহ ধরে দুর্ঘটনা এড়াতে সন্ধ্যার পর ফেরি চলাচল বন্ধের পর বুধবার দুপুর আড়াইটা থেকে ফেরি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এরপর থেকে ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে যানবাহন বিকল্প রুটে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে। এরপরও এ্যাম্বুলেন্সসহ যে সকল যানবাহন আসছে সেগুলোও দীর্ঘসময় থেকে বিকল্প রুটে চলে যাচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিএর পরিচালক মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বিআইডব্লিউটিএ,বিআইডব্লিউটিসিসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে আমরা পদ্মা নদী ও বিভিন্ন পয়েন্ট পরিদর্শন করলাম। সবার সাথে আলোচনা করে ও নদী পর্যবেক্ষন করে লঞ্চ চলাচল এখন পর্যন্ত পদ্মা সেতুর নীচ দিয়েই করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে স্রোত আরো অবনতি হলে লঞ্চও বন্ধ করা হবে। আর স্রোত কমলে ফেরি চালানো হবে। তবে সাময়িকভাবে শুধু হালকা যানবাহন নিয়ে ফেরি মাঝিকান্দি দিয়ে চালানোর বিষয়টি ভাবা হচ্ছে । এতে পদ্মা সেতু বাইরে থাকবে। তবে সেক্ষেত্রে আরো গভীরভাবে পর্যালোচনার বিষয় রয়েছে।

সূত্র: সমকাল
এম ইউ/১৯ আগস্ট ২০২১

(function(d, s, id){
var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0];
if (d.getElementById(id)) return;
js = d.createElement(s); js.id = id;
js.src = “https://connect.facebook.net/bn_BD/sdk.js#xfbml=1&version=v3.2”;
fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs);
}(document, ‘script’, ‘facebook-jssdk’));