নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাস – News Vibe24

নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাস - DesheBideshe

ঢাকা, ০১ সেপ্টেম্বর – অস্ট্রেলিয়ার পর নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষেও ‘প্রথমের’ দেখা পেল বাংলাদেশ। প্রথমবার নিউ জিল্যান্ডকে টি-টোয়েন্টিতে হারাল টাইগাররা। দুর্দান্ত বোলিংয়ে মিরপুরে কিউইদের ৬০ রানে গুটিয়ে দেওয়ার পর ৩ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছায় স্বাগতিকরা। ৭ রানে ২ উইকেট হারানোর পর সাকিব আল হাসান বিপর্যয় ঠেকান। ইনিংস সেরা ২৫ রান করেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। পরে মাহমুদউল্লাহ ও মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে ৩০ বল হাতে রেখে জেতে বাংলাদেশ। ১৬ রানে মাহমুদউল্লাহ ও মুশফিক ১৪ রানে অপরাজিত ছিলেন।

বাংলাদেশ: ৬২/৩ (১৫ ওভার)

নিউ জিল্যান্ড: ৬০/১০ (১৬.৫ ওভার)

বিপর্যয় ঠেকিয়ে সাকিবও ফিরে গেলেন

দলের বিপর্যয় সামাল দিয়ে ফিরে গেলেন সাকিব আল হাসান। দলীয় ৩৭ রানে আউট হন তিনি রাচিন রবীন্দ্রর বলে। ৩৩ বলে ২ চারে ২৫ রান করে টম ল্যাথামের গ্লাভসে ধরা পড়েন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান। ৭ রানে ২ উইকেট হারানোর পর সাকিব মাঠে নামেন। ৩০ রানের জুটি গড়ার পথে তার সঙ্গী ছিলেন মুশফিকুর রহিম।

নাঈমের পর লিটনের বিদায়

৬১ রানের লক্ষ্যে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলে মোহাম্মদ নাঈম আউট হন। ১ রানে তার বিদায়ে ভাঙে উদ্বোধনী জুটি। কোল ম্যাককনচি অভিষেকে প্রথম বলেই উইকেট পান। শর্ট কভারে হেনরি নিকলসের ক্যাচ হন নাঈম। পরের ওভারে এজাজ প্যাটেল ১ রানে লিটন দাসকে টম ল্যাথামের ক্যাচ বানান।

নিউ জিল্যান্ডকে সর্বনিম্ন রানের লজ্জা দিলো বাংলাদেশ

আগের টি-টোয়েন্টিতেই অস্ট্রেলিয়াকে ৬২ রানে অলআউট করেছিল বাংলাদেশ। নিউ জিল্যান্ড তার চেয়েও ২ রান কম করতে পারল। মিরপুরের শের-ই-বাংলায় বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) ৬০ রানে গুটিয়ে গেল কিউইরা। বাংলাদেশ তাদের যৌথ সর্বনিম্ন রানে থামাল। এর আগে ২০১৪ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গ্রুপ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে ৬০ রানে অলআউট হয় নিউ জিল্যান্ড।

বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে স্পিনারদের টার্ন ছিল বিপজ্জনক। খেলার উপযোগী ছিল পিচ, কিন্তু সফরকারী ব্যাটসম্যানরা ভুগেছে। তবে পেসার মোস্তাফিজুর রহমান সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন ২.৫ ওভারে ১৩ রান দিয়ে। দুটি করে উইকেট পান দুই স্পিনার নাসুম আহমেদ ও সাকিব আল হাসান। পেসার সাইফউদ্দিনও সমান সংখ্যক উইকেট শিকার করেন। নিউ জিল্যান্ডের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৮ রান করেন হেনরি নিকলস ও টম ল্যাথাম।

এবার সাইফউদ্দিন-মোস্তাফিজে দিশেহারা কিউইরা

নাসুম-সাকিবদের ঘূর্ণিতে শুরুতেই দিশেহারা ছিল নিউ জিল্যান্ড। এবার সাইফউদ্দিন-মোস্তাফিজে কাঁপছে কিউইরা। সাইফউদ্দিনের ২ উইকেটের পর প্রথম উইকেটের দেখা পেয়েছেন মোস্তাফিজ। এজাজ প্যাটেলকে ইনিংসের ১৫তম ওভারের প্রথম বলে বোল্ড করেন। ৬ বলে মাত্র ৩ রান করেন এজাজ। একই ওভারের পঞ্চম বলে ফেরান ডগ ব্রেসওয়েলকে। তার ব্যাট থেকে ৭ বলে ৫ রান আসে।

আবারও সাইফউদ্দিনের আঘাত

সাইফউদ্দিনের স্লো বলে সোজাসুজি উড়িয়ে মেরেছিলেন হেনরি নিকোলস। কিন্তু শটে কোনো পাওয়ার ছিল না। একটু এগিয়ে এসে ক্যাচ ধরেন মুশফিকুর রহিম। ১টি চারের মারে ২৪ বলে ১৭ রান আসে নিকোলসের ব্যাট থেকে।

নিউ জিল্যান্ডের ব্যাটিংয়ে ধস

৯ রান না হতে ৪ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা কিউইদের হয়ে প্রতিরোধ গড়ছিলেন টম লাথাম-হেনরি নিকোলস। কিন্তু বেশিদূর এগোতে পারেননি। সাইফউদ্দিনের বলে পুল করতে গিয়ে লাথাম ধরা পড়েন ফাইন লেগে। ভেঙে যায় ৩৩ রানের জুটি। লাথামের ব্যাট থেকে আসে ২৫ বলে ১৮ রান। এরপরের ওভারে (১২তম) সাকিব এসে সাজঘরে ফেরান কোল ম্যাকননচিকে। ৩ বল খেলে কোনো রান করতে পারেননি ম্যাকননচি। এটি সাকিবের দ্বিতীয় উইকেট।

ঘূর্ণিতে শুরুতেই দিশেহারা নিউ জিল্যান্ড

যেনো অস্ট্রেলিয়া সিরিজের পুনরাবৃত্তি। টস জিতে ব্যাটিং নেয় নিউ জিল্যান্ড। প্রথম ওভারে আসেন মেহেদী হাসান। তৃতীয় বলে ফেরান রাচিন রবিন্দ্রকে। এরপর নাসুমের দ্বিতীয় ওভারে কাটিয়ে দেয় কিউইরা। তৃতীয় ওভারে সাকিব এসে ফেরান উইল ইয়াংকে। আর চতুর্থ ওভারে নাসুম জোড়া আঘাত হানেন। ফেরান গ্র্যান্ডহোম-ব্লান্ডেলকে। ৯ রানে নেই চার উইকেট! নাসুম-সাকিবদের ঘূর্ণিতে শুরুতেই দিশেহারা নিউ জিল্যান্ড।

পাওয়ার প্লে-তে ২৫টি ডট বল!

টি-টোয়েন্টি মানেই ধুমধাড়াক্কা ক্রিকেট আর চার-ছয়ের বৃষ্টি। অথচ চলছে নিউ জিল্যান্ডের উইকেট আর ডট বলের মিছিল। পাওয়ার প্লে-র ৬ ওভারে ৩৬টি বলের মধ্যে ২৫টিতে কোনো রানই নিতে পারেনি কিউইরা। এরমধ্যে ১৮ রানে হারে হারিয়েছে ৪ উইকেট। ওভারপ্রতি রান হয়েছে মাত্র ৩টি করে!

৯ রানে ৪ উইকেট নেই নিউ জিল্যান্ডের

সাকিবের ঘূর্ণিতে বোল্ড ইয়াং। ইনিংসের তৃতীয় ওভারের পঞ্চম বলে ১১ বলে মাত্র ৫ রান করে ফেরেন ইয়াং। সাকিবের স্লো বল বুঝে ওঠার আগেই ভেঙে যায় ইয়াংয়ের উইকেট। পরের ওভারে নাসুম ফেরান অভিজ্ঞ কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে। মাত্র ১ রান করেন গ্র্যান্ডহোম। নাসুমের একই ওভারে ১ রানে ফেরেন টম ব্লান্ডেল। এর আগে প্রথম ওভারে রাচিন রবীন্দ্রকে ফেরান মেহেদী। মাত্র ৮ রানে দলটি হারিয়েছে ৩ উইকেট।

প্রথম ওভারেই উল্লাসে ভাসালেন মেহেদী

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৫ ম্যাচেই প্রথম ওভার করেছিলেন মেহেদী হাসান। নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে তার ব্যতিক্রম হয়নি। ইনিংসের তৃতীয় বলে রাচিন রবীন্দ্রকে ফেরালেন সাজঘরে। নিজের অভিষেক ম্যাচে মেহেদীর হাতেই ক্যাচ দিয়ে ০ রানে ফেরেন রাচিন।

টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। এই ম্যাচে টস হেরে ফিল্ডিং করবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খেলাটি শুরু হচ্ছে বিকেল ৪টায়।

বাংলাদেশ একাদশ: নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে একাদশে ফিরেছেন মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাস। তারা সবশেষ অস্ট্রেলিয়া সিরিজে ছিলেন না।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ( অধিনায়ক), লিটন দাস, নাঈম শেখ, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, নুরুল হাসান সোহান, শেখ মেহেদী হাসান, আফিফ হোসেন ধ্রুব, নাসুম আহমেদ, সাইফউদ্দিন ও মুস্তাফিজুর রহমান।

নিউজিল্যান্ড একাদশ :

টম ল্যাথাম (অধিনায়ক, উইকেট রক্ষক), রাচিন রবীন্দ্র, টম ব্লান্ডেল, উইল ইয়াং, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, হেনরি নিকলস, কোল ম্যাকননচি, ডগ ব্রেসওয়েল, এজাজ প্যাটেল, জ্যাকব ডাফি ও ব্লেয়ার টিকনার।

পরাজয়ের বৃত্ত ভাঙার মিশন বাংলাদেশের

টি-টোয়েন্টিতে নিউ জিল্যান্ডকে কখনো হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। খেলেছে দশটি ম্যাচ। হেরেছে সবকটিতে। এবার সেই পরাজয়ের বৃত্ত ভাঙতে চায় বাংলাদেশ। কন্ডিশন, অতীত ও সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স বিবেচনায় বাংলাদেশ নিশ্চিতভাবে এগিয়ে আছে। নিউ জিল্যান্ড জাতীয় দল পাঠালেও টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডের নিয়মিত ক্রিকেটার কেউ নেই। ফলে অভিজ্ঞতা বিবেচনায় স্বাগতিকদের বিবেচনায় তারা পিছিয়ে আছে।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এম এস, ০১ সেপ্টেম্বর

(function(d, s, id){
var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0];
if (d.getElementById(id)) return;
js = d.createElement(s); js.id = id;
js.src = “https://connect.facebook.net/bn_BD/sdk.js#xfbml=1&version=v3.2”;
fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs);
}(document, ‘script’, ‘facebook-jssdk’));