‘কেন শিশুদের ওপর বোমা মারছে ইসরায়েল বাহিনী’

‘কেন শিশুদের ওপর বোমা মারছে ইসরায়েল বাহিনী’

ইসরায়েলের বিমান হামলায় তার বাড়ি এখন ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। চোখের সামনে পরিবার পরিজন-প্রতিবেশীর মৃত্যু দেখছে।

এ যুদ্ধ থামানোর ক্ষমতা তার নেই। ধ্বংসস্তূপ দেখিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়া গাজার ১০ বছর বয়সী কিশোরী নাদিন-আবদেল-তইফ জানায়, ‘কী করব আমি? আমার কী ক্ষমতা আছে? আমার বয়স মাত্র ১০ বছর। ’ 

নাদিনের ওই কান্নার ভিডিও নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পেড়েছে।

নাদিন কাঁদতে কাঁদতে জানায়, ‘কী করব আমি, বলুন? ওই ধ্বংসস্তূপ সরাবো? আমার সত্যিই ভয় করছে। আমার লোকেদের জন্য আমি সবকিছু করতে পারি। কিন্তু কী করা উচিত এখন, সেটাই তো বুঝতে পারছি না। আমি বড় হয়ে ডাক্তার হতে চাই যাতে লোককে সাহায্য করতে পারি। কিন্তু কিছুই করে উঠতে পারছি না। ’ 

সে আরও জানায়, ‘আমি যখনই এসব দেখি, আমার কান্না পায়। শুধু ভাবি, কেন আমাদের ওপরই হামলা হচ্ছে? বাড়ির লোকেরা বলে, আমরা মুসলিম বলে ওরা আমাদের ঘৃণা করে। এখানে এতো শিশু থাকে। কেন শিশুদের ওপর বোমাবর্ষণ করছে ওরা?’

সোমবার পর্যন্ত গাজায় ইজরায়েলি বিমান হানায় গাজায় ৫৮ জন শিশু ও ৩৪ জন নারীসহ কমপক্ষে ১৯২ জন নিহত হয়েছে। ইউনিসেফের রিপোর্ট বলছে, গাজায় সর্বনিম্ন ৬ বছর বয়সের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। যদিও সাধারণ নাগরিকদের ওপর হামলা চালানোর কথা অস্বীকার করেই চলেছে ইসরায়েল। ইসরায়েলেও দুই শিশুর মৃত্যুর খবর মিলেছে। তার মধ্যে একজনের বয়স ৬ বছর।

গোনিউজ/আই

Source