আফগানিস্তানে হামলা চালানো কে এই আইএসকেপি? – News Vibe24

আফগানিস্তানে হামলা চালানো কে এই আইএসকেপি? - DesheBideshe


কাবুল, ২৭ আগস্ট – আফগানিস্তানের কাবুল বিমানবন্দরের একটি প্রবেশপথে বোমা বিস্ফোরণে এখন পর্যন্ত ৬০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এতে আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১৪০ জন। জোড়া আত্মঘাতী বোমা হামলার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট তথা আইএস।

বৃহস্পতিবার রাতে নিজস্ব বার্তা সংস্থার মাধ্যমে বিষয়টি জানায় আইএস। নিষিদ্ধ এই জঙ্গিগোষ্ঠীটি আত্মঘাতীর ছবিও প্রকাশ করে।

মূলত এই হামলা চালিয়েছে আইএস এর সহযোগী সংস্থা ইসলামিক স্টেট খোরাশান (আইএসকেপি)। যারা এর আগে মার্কিন সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে সিরিয়া ও ইরাকে যুদ্ধ করেছে। অবশ্য আইএসকেপি তালেবানেরও পুরনো শত্রু। তারা দেশের বর্তমান অরাজক পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে এই হামলা চালিয়েছে।

আইএস জানায়, মার্কিন অনুবাদক ও সহযোগীদের ভীড়ের মধ্যে যেতে সক্ষম হয় তাদের আত্মঘাতী হামলকারী। বিমানবন্দরের ব্যারক ক্যাম্পের পাশে গিয়ে সে তার আত্মঘাতী হামলাটি চালায়। যাতে ৬০ জন নিহত হয় ও শতাধিক আহত হয়। নিহতদের মধ্যে নারী, শিশু, তালেবান ও মার্কিন সেনাও রয়েছে।

এদিকে আরও হামলার শঙ্কা মাথায় নিয়েও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তাদের নাগরিক ও সহযোগীদের আফগানিস্তান থেকে সরিয়ে নেওয়ার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এখনো আফগানিস্তানে কমপক্ষে ১ হাজার মার্কিন নাগরিক রয়েছে। আর তাদের সহযোগী রয়েছে প্রায় ৫ হাজার।

কারা এই আইএসকেপি?

আফগানিস্তানে ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠী যে নাম ব্যবহার করে তা হলো ইসলামিক স্টেট অফ খোরাসান প্রভিন্স। এখানে খোরাসান শব্দটি এসেছে আধুনিক আফগানিস্তান ও পাকিস্তান নিয়ে যে অঞ্চল তার প্রাচীন নাম থেকে। আইএসকেপি গোষ্ঠীর জন্ম ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে। মূলত পাকিস্তানি তালেবান এবং আফগান তালেবানের সাবেক সদস্যদের নিয়ে এই গোষ্ঠী তৈরি হয়।

আফগানিস্তানের তালেবানের চেয়ে আইএসকেপি বহুগুণ বেশি কট্টরপন্থী। তারা আফগান তালেবানকে শত্রু বলে মনে করে। ইসলামী বিধানের তাদের ব্যাখ্যা অনুযায়ী মনে করে যে ‘মুরতাদ’ হিসেবে তালেবানকে লক্ষ্য করে হামলা চালানো ‘জায়েজ’ (বৈধ/আইনসিদ্ধ)।

গত বছর ২৯শে ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্র এবং আফগানিস্তানের তালেবানের মধ্যে যে শান্তি চুক্তি হয় আইএসকেপি তার নিন্দা জানায় এবং বলে যে তারা আফগানিস্তানে তাদের লড়াই অব্যাহত রাখবে। এই গোষ্ঠী একই সঙ্গে তালেবানের আফগানিস্তান দখলকে নাকচ করে দিয়ে দাবি করে যে এক গোপন চুক্তির অংশ হিসেবে আমেরিকানরা আফগানিস্তানকে তালেবানের হাতে তুলে দিয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ আগস্ট তালেবানের আগ্রাসনের মুখে পশ্চিমাসমর্থিত সরকারের পতন ঘটে। তারপর থেকেই কাবুল চালাচ্ছে তালেবান। যদিও তারা সবার জন্য ‘সাধারণ ক্ষমা’ ঘোষণা করেছে। তবে তালেবান ক্ষমতাগ্রহণের পর থেকে আফগানিস্তান ত্যাগের হিড়িক পড়ে গেছে।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ২৭ আগস্ট

(function(d, s, id){
var js, fjs = d.getElementsByTagName(s)[0];
if (d.getElementById(id)) return;
js = d.createElement(s); js.id = id;
js.src = “https://connect.facebook.net/bn_BD/sdk.js#xfbml=1&version=v3.2”;
fjs.parentNode.insertBefore(js, fjs);
}(document, ‘script’, ‘facebook-jssdk’));